০৬ ডিসেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:৪১:৫৯ অপরাহ্ন


ভালুকের মুখে স্প্রে করে পালিয়ে বাঁচল চা শ্রমিকেরা
সুমাইয়া তাবাসুম:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-১১-২০২২
ভালুকের মুখে স্প্রে করে পালিয়ে বাঁচল চা শ্রমিকেরা ভালুকের মুখে স্প্রে করে পালিয়ে বাঁচল চা শ্রমিকেরা


শীত পড়তেই ফের ডুয়ার্সে আনাগোনা শুরু হয়েছে ভালুকের। চা গাছে দল বেঁধে  শ্রমিকরা কীটনাশক স্প্রে করার সময় ঝোপ থেকে বেরিয়ে তেড়ে এল এক ভালুক। শ্রমিকরা প্রথমে হতচকিত হয়ে পড়লেও সম্বিত ফিরতেই ভালুকের মুখে স্প্রে করে পালিয়ে প্রানে বাঁচলেন তাঁরা। এরপর ভালুকটিও চা বাগানে লুকিয়ে পড়ে। 

বৃহস্পতিবার সকালে মাল মহকুমার টুনবাড়ি চা বাগানের ৬ নম্বর সেকশনে কীটনাশক স্প্রে করছিলেন চা শ্রমিকেরা। সে সময় লাগোয়া ঝোপ থেকে বেরিয়ে ভালুকটি ওই চা শ্রমিকদের দিকে তেড়ে আসে। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়।

চলতি বছরে জলপাইগুড়ি জেলায় এই নিয়ে দুবার ভালুকের উপস্থিতির খবর পাওয়া গেল। চলতি মাসেই কিলকট চা বাগানে প্রথম ভালুক দেখা গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার দেখা মিলল টুন বাড়ি চা বাগানের ৬ নম্বর সেকশনে। ভালুকের খবর ছড়াতেই মানুষের ভিড় উপচে পড়ে। বন দফতরে খবর দেওয়া হয়। ছুটে আসেন মাল ও চালসা রেঞ্জের বনকর্মীরা। পৌঁছয় ট্রাঙ্কুলাইজিং টিমও। এরপর জাল দিয়ে চা বাগানের ওই এলাকা ঘিরে ফেলে শুরু হয়ে সার্চিং। কিন্তু তারপর আর খোঁজ মেলেনি ভালুকটির।

প্রত্যক্ষদর্শী মিলন মুন্ডা বলেন, “সকালে আমরা ৬ নম্বর সেকশনে কীটনাশক স্প্রে করছিলাম। সেই সময় আমাদের দুই শ্রমিক ডালে রাই এবং সুরেশ রাউতিয়াকে লক্ষ্য করে ভালুকটি ধেয়ে আসে। স্প্রে ছিটিয়ে ওরা কোনওমতে পালিয়ে যায়। আমিও পালাই।”

গত বছরের নভেম্বর মাসে ডুয়ার্সে ভালুক এসেছিল। খবর পেয়ে তার ছবি মোবাইল বন্দি করতে যান দুইজন। তাঁদের মধ্যে একজনকে ভালুকটি মেরে ফেলে। পরে ভালুকটিকে পিটিয়ে মারে উত্তেজিত জনতা।