০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, সোমবার, ১২:৩৮:০৮ অপরাহ্ন


ঈশ্বরদীতে দুই সাংবাদিককে মারধর, মূল হোতা কারাগারে
অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৯-১২-২০২২
ঈশ্বরদীতে দুই সাংবাদিককে মারধর, মূল হোতা কারাগারে মূল হোতা মাহবুব আলম। ফাইল ফটো


ঈশ্বরদীতে আলোচিত সাংবাদিকের ওপর হামলা ও হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামি নিষিদ্ধ যৌন উত্তেজক সিরাপ প্রস্তুতকারী এমএমই ল্যাবরেটরি ইউনানী কোম্পানির মালিক মাহবুব আলমকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। 

বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর)  আসামি মাহবুব আলম আদালতে জামিনের আবেদন করলে পাবনা সিনিয়র জুডিশিয়াল (আমলী ২) আদালতের বিচারক সুকান্ত শাহা জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

গত ১৩ ডিসেম্বর বিকালে নিষিদ্ধ যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরির খবর সংগ্রহ করতে ওই কারখানায় যায় দৈনিক মুক্ত খবরের ঈশ্বরদী প্রতিনিধি ও স্থানীয় জন দাবির স্টাফ রিপোর্টার শিশির মাহমুদ (২৬) এবং এশিয়ান টিভির ঈশ্বরদী প্রতিনিধি রাসেল আলী (২৬)। এ সময় কারখানার এক্যাউন্টন্স ম্যানেজার শিমুল কৌশলে কারখানার মূলফটক এবং বিদ্যুতের মেইন সুইচ বন্ধ করে দেয়। পরে মালিক মাহাবুব আলমসহ আরও কয়েকজন দুই সাংবাদিককে ঘরে আটকে রেখে বেদম মারধর এবং ক্যামেরা ভেঙে ফেলে। লোহার রড, জিআই পাইপ ও হাতুড়ির আঘাতে শিশিরের মাথা ফেটে যায়। ওই রাতেই সাংবাদিক শিশির মাহমুদ বাদী হয়ে মালিক মাহবুব আলমকে প্রধান আসামি করে ঈশ্বরদী থানায় মামলা  দায়ের করেন। 

ঘটনার প্রতিবাদে ১৪ ডিসেম্বর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে ঈশ্বরদীতে কর্মরত সাংবাদিকরা।