২৯ মে ২০২৪, বুধবার, ০৪:৪০:১৪ পূর্বাহ্ন


নিউ ইয়র্কে পুলিশে ভুয়া অভিযোগ করায় বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ৬৩ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা
ইমা এলিস, নিউ ইয়র্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৬-০৩-২০২৩
নিউ ইয়র্কে পুলিশে ভুয়া অভিযোগ করায় বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ৬৩ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা এস কে আনোয়ার।


যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক পুলিশের কাছে মিথ্যা ফৌজদারি অভিযোগ করায় প্রবাসী এক বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ৬ মিলিয়ন ডলারের (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬৩ কোটি টাকা) ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। এস কে আনোয়ার নামে নিউ ইয়র্ক প্রবাসী ওই বাংলাদেশি গত ২ মার্চ নিউ ইয়র্কের কুইন্স কাউন্টি পুলিশ স্টেশনে গিয়ে ব্যবসার সাবেক অংশিদার ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইয়াসিনের নামে মিথ্যা ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করলে গোয়েন্দা পুলিশ ইয়াসিনকে পুলিশ স্টেশনে হাজির হবার নির্দেশ দেন। ঐদিন পুলিশ স্টেশনে তিনি হাজির হয়ে অভিযোগ সংক্রান্ত সকল কাগজপত্র দেখালে পরে তাকে পুলিশ ষ্টেশন থেকে বাসায় ফেরত পাঠানো হয়। এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস।

প্রাথমিক তদন্তেই এস কে আনোয়ার অভিযোগটি পুলিশের কাছে ভুয়া প্রমাণিত হয়েছে। কুইন্স কাউন্টি জেলা অ্যাটর্নি ফৌজদারি আদালতে যাবার আগে অভিযোগটি বরখাস্তসহ  গ্রেপ্তারের মামলা ও সব রেকর্ড সিলগালা করেন।
এস কে আনোয়ারের মিথ্যা ফৌজদারি অভিযোগের ফলে ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইয়াসিনের চরম মানহানি হয়েছে বলে উল্লেখ করে তিনি গত ১৬ মার্চ নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি সুপ্রিম কোর্টে ৬ মিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬৩ কোটি টাকা)-এর একটি ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের করেছেন। ইয়াসিনের পক্ষে এ মামলাটি দায়ের করেন অ্যাটর্নি ইরা লেভিন, ইএসকিউ। মামলার ইনডেক্স নম্বর-৬০৪৪৮৭/২০২৩। উক্ত দায়ের করা মামলায় ইয়াসিন ক্ষতিপূরণমূলক ক্ষতির জন্য পাঁচ মিলিয়ন এবং শাস্তিমূলক ক্ষতির জন্য আরও এক মিলিয়ন ডলার দাবি করেন।
 আসামী যদি আদালতে উপস্থিত হতে ব্যর্থ হন, তাহলে ডিফল্টরূপে ক্ষতিপূরণমূলক এবং শাস্তিমূলক রায় দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করেন আদালত। মামলা দায়েরের পরে এস কে আনোয়ারের নিউ ইয়র্কের ইষ্ট এমহার্ষ্টের ঠিকানায় সমন জারি করেছেন আদালত।  
এদিকে এস কে আনোয়ারের উদ্ধৃতি দিয়ে নিউ ইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকা গত ৩ মার্চের সংখ্যায় প্রথম পৃষ্ঠায় ‘এসবিএ লোন : ৫ লাখ ডলার হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ: প্রতারণার দায়ে বাংলাদেশী গ্রেফতার’ শীর্ষক একটি ভুয়া প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। উক্ত প্রতিবেদনে ইয়াসিনের সম্পর্কে যেসব তথ্য প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও প্রতিহিংসামূলক বলে উল্লেখ করেছেন ইয়াসিন। তিনি উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন আজকাল-এ প্রকাশিত খবরে ব্যক্তিগতভাবে তার ও তার পরিবারের চরম মানহানি ঘটেছে। কেননা, প্রকাশিত খবর প্রসঙ্গে তিনি কিছুই জানেন না এবং তার কাছে আজকাল কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কোন কিছু জানতে চাননি বা তার কোন বক্তব্য উক্ত রিপোর্টে নেই। প্রকাশিত রিপোর্টে বলা হয়েছে তিনি নাকি এস কে আনোয়ারের নামের এক বাংলাদেশির কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ৫ লাখ ডলার হাতিয়ে নিয়েছেন এবং তাকে বাসা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন এইসব তথ্য সর্ববৈ মিথ্যা ও বানোয়াট। প্রকাশিত ভুয়া প্রতিবেদনের জন্য সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকার বিরুদ্ধে ১০৫ কোটি টাকা (১০ মিলিয়ন ডলার) এর মানহানি মামলা দায়ের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন ইয়াসিন। আগামী সপ্তাহেই আদালতে তা দাখিল করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।