০১ Jul ২০২২, শুক্রবার, ০৪:২৩:৪৬ পূর্বাহ্ন


ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক মামনি শিশু নিবাসে
অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-০২-২০২২
ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক মামনি শিশু নিবাসে ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক মামনি শিশু নিবাসে


লালমনিরহাট শহরের ডাস্টবিন থেকে জীবিত উদ্ধার হওয়া নবজাতক সেই কন্যা শিশু ফাল্গুনীকে বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পাঠানো হয়েছে রাজশাহীর মামনি শিশু নিবাসে।

গত ১৪ জানুয়ারী সকাল সোয়া ৬ টায় লালমনিরহাট জেলা শহরের কালীবাড়ি এলএসডি গোডাউন সংলগ্ন এলাকায় একটি ডাস্টবিন থেকে নবজাতক কন্যা শিশুটিকে উদ্ধার করে লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশ। পহেলা ফাল্গুনে তাকে উদ্ধার করায় নাম রাখা হয় ফাল্গুনী।

পরে ফাল্গুনীকে (শিশুটিকে) তারা লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে শিশু নিবিড় পরিচর্যা ওয়ার্ডে ভর্তি করে। সেখানে সার্বক্ষণিক সদর থানার মহিলা পুলিশের মাতৃস্নেহ, চিকিৎসক ও নার্সদের পরিচর্যায় শিশুটি সম্পূর্ণরুপে সুস্থ হয়ে উঠে।

এ সময়ের মধ্যে ফাল্গুনীকে (শিশুটিকে) দত্তক নেওয়ার জন্য লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক ও জেলা সমাজ সেবা অফিসে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৪০ জন আবেদন করেন বলে জানান লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক ও জেলা শিশু সুরক্ষা সেল-এর সভাপতি মো. আবু জাফর।

তিনি আরও জানান, এমন ঘটনায় সরকারের আরোপিত বিধির কারণে আমরা দত্তক না দিয়ে রাজশাহীর মামনি শিশু নিবাসে প্রেরণ করি। 

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা সময় সংবাদকে জানান, টানা ১০ দিন মহিলা পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার হওয়া নবজাতক ফাল্গুনীকে (শিশুটিকে) মাতৃস্নেহ দিয়ে লালন পালন করেছে। বাচ্চাটিকে ১৪ ফেব্রুয়ারি পহেলা ফাল্গুনের দিন উদ্ধার করার কারনে তার নাম দেয়া হয়েছে ফাল্গুনী। 

এদিকে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহাআলম জানান, এ ঘটনায় লালমনিরহাট সদর থানায় পুলিশ নিজেরাই বাদী হয়ে একটি মামলা করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া ফাল্গুনীর (শিশুটির) প্রকৃত পরিচয় জানাসহ অন্যান্য বিষয় শনাক্ত করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। 

ফাল্গুনীকে রাজশাহীর মামনি শিশু নিবাসে প্রেরণের সময় সদর হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. আব্দুল্যাহ আল প্রিন্স, লালমনিরহাট নারী অধিকার নেটওয়ার্ক এর সভাপতি কবি ও সাহিত্যিক ফেরদৌসী বেগম বিউটি।

রাজশাহীর সময় / এম আর