১৩ Jul ২০২৪, শনিবার, ০১:২৪:১৩ অপরাহ্ন


শপথ ভেঙে ফেললে যেভাবে কাফফারা দিতে হয়
ধর্ম ডেস্ক
  • আপডেট করা হয়েছে : ২০-১১-২০২৩
শপথ ভেঙে ফেললে যেভাবে কাফফারা দিতে হয় ফাইল ফটো


ইসলামে শপথ শুধু আল্লাহর নামেই করতে হয়। আল্লাহ ছাড়া কারও নামে শপথ করা হারাম ও ছোট শিরক, যা বড় গুনাহসমূহের অন্তর্ভুক্ত। আল্লাহর ছাড়া যে কোনো ব্যক্তি বা বস্তু যেমন ফেরেশতা, নবিজি (সা.), কাবা, আমানত, নামাজ, বাবা-মা বা কোনো দরবেশের নামে শপথ করা হারাম। রাসুল (সা.) বলেন, আল্লাহ তোমাদের বাবা-মায়ের নামে শপথ করতে নিষেধ করেছেন। যে শপথ করতে চায়, সে যেন আল্লাহর নামে শপথ করে অথবা চুপ থাকে। (সহিহ বুখারি, সহিহ মুসলিম)

কেউ যদি আল্লাহর নামে কোনো শপথ করে পরে তা রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়, শপথটি ভেঙে ফেলে, তাহলে সেজন্য কাফফারা দিতে হয়। কসমের কাফফারা হলো দশজন দরিদ্র ব্যক্তিকে দুই বেলা তৃপ্তি সহকারে খাবার খাওয়ানো অথবা দশজন দরিদ্র ব্যক্তিকে এক জোড়া করে কাপড় দেওয়া। এভাবে কাফফারা আদায় করার সামর্থ্য না থাকলে লাগাতার তিনদিন রোজা রাখতে হবে। আল্লাহ বলেন,

لَا یُؤَاخِذُکُمُ اللّٰهُ بِاللَّغۡوِ فِیۡۤ اَیۡمَانِکُمۡ وَ لٰکِنۡ یُّؤَاخِذُکُمۡ بِمَا عَقَّدۡتُّمُ الۡاَیۡمَانَ فَکَفَّارَتُهٗۤ اِطۡعَامُ عَشَرَۃِ مَسٰکِیۡنَ مِنۡ اَوۡسَطِ مَا تُطۡعِمُوۡنَ اَهۡلِیۡکُمۡ اَوۡ کِسۡوَتُهُمۡ اَوۡ تَحۡرِیۡرُ رَقَبَۃٍ ؕ فَمَنۡ لَّمۡ یَجِدۡ فَصِیَامُ ثَلٰثَۃِ اَیَّامٍ

আল্লাহ তোমাদেরকে পাকড়াও করেন না অর্থহীন কসমের ব্যাপারে, কিন্তু যে কসম তোমরা দৃঢ়ভাবে কর সে কসমের জন্য তোমাদের পাকড়াও করেন। সুতরাং এর কাফফারা হল দশ জন মিসকিনকে খাবার দান করা, মধ্যম ধরনের খাবার, যা তোমরা নিজেদের পরিবারকে খাইয়ে থাক অথবা তাদের বস্ত্র দান করা কিংবা একজন দাস-দাসি মুক্ত করা। যে সামর্থ্য রাখে না, তার জন্য তিনদিন রোজা রাখা। (সুরা মায়েদা: ৮৯)