২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, সোমবার, ০৯:১১:২৯ পূর্বাহ্ন


১০০ কি.মি গতিবেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়!
আবহাওয়া ডেস্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৩-১২-২০২৩
১০০ কি.মি গতিবেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়! ১০০ কি.মি গতিবেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়!


রবিবার ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় মিগজাউম। এই ঝড়ের নামকরণ করেছে মায়ানমার। রবিবার বঙ্গোপসাগরেই ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে নিম্নচাপ। ঝড় বৃষ্টির সতর্কতার সঙ্গে মৎস্যজীবীদেরও সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। তামিলনাডু অন্ধ্রপ্রদেশ ও ওড়িশা উপকূলে মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধাজ্ঞা।

ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবার পর এই সিস্টেম শুধু উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোবে এবং সোমবার দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশ ও উত্তর তামিলনাড়ু উপকূলে পৌঁছবে। এরপর গতিপথ পরিবর্তন করে শুধুই উত্তর দিকে এগোবে ঘূর্ণিঝড়। মঙ্গলবার দুপুর অথবা বিকেলে এই ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানবে দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে। আবহাওয়াবিদদের অনুমান অন্ধ্রপ্রদেশের নেল্লোর ও মছলিপত্তনামের মাঝামাঝি এই ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে পারে স্থলভাগে। সেই সময় এই ঘূর্ণিঝড়ের গতিবেগ ঘন্টায় ৮০ থেকে ৯০ কিলোমিটার সর্বোচ্চ ১০০ কিলোমিটার গতিবেগ হতে পারে।

দক্ষিণবঙ্গে এইই সপ্তাহেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশ কিছু জেলাতে। সোমবার থেকে আবহাওয়ার পরিবর্তন দক্ষিণবঙ্গের উপকূল ও ওড়িশা সংলগ্ন জেলাগুলিতে। মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার এর মধ্যে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া এবং কলকাতা সহ সংলগ্ন জেলাগুলিতে। হালকা বৃষ্টি হতে পারে হাওড়া হুগলি, পূর্ব বর্ধমান এবং নদীয়া জেলাতে।

মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে এই বৃষ্টি হওয়ার প্রবল সম্ভবনা বলে জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। বৃষ্টির সঙ্গে হালকা ঝোড়ো হওয়া হতে পারে উপকূলের জেলাগুলিতে। শীতের পথে কার্যত কাঁটা হয়ে উঠছে ঘূর্ণিঝড়। শীতের আমেজ থমকে গিয়েছে। সপ্তাহান্তে আবহাওয়ার বদল উপকূল ও সংলগ্ন জেলাগুলিতে। পুরোপুরি মেঘলা আকাশ।

উত্তরবঙ্গে পার্বত্য এলাকা ছাড়া আপাতত মেঘমুক্ত পরিষ্কার আকাশ। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে উইকেন্ডে দার্জিলিং কালিম্পংয়ে হালকা বৃষ্টির পূর্বাভাস। আগামী তিন চার দিনে উত্তরবঙ্গে তাপমাত্রা প্রায় একই রকম থাকবে। ডিসেম্বরের শুরুতেও হালকা বৃষ্টি হতে পারে পার্বত্য এলাকায়। উত্তরবঙ্গের বাকি জেলাতে একই রকম পরিবেশ শুকনো আবহাওয়া থাকবে আরও চার-পাঁচ দিন। উত্তরপূর্ব ভারত লাগোয়া জেলাগুলি এবং পার্বত্য এলাকায় কুয়াশার সম্ভাবনা।

কলকাতায় (রবিবার) থেকে আবহাওয়ার পরিবর্তন হতে পারে। আগামীকাল অর্থাৎ সোমবার থেকে আকাশ মেঘলা হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। বুধবার নাগাদ বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতায়। শীতের আমেজ কমে বাড়বে উষ্ণতা। শুক্রবারের পর এর আবহাওয়ার পরিবর্তন পারদ নামার ইঙ্গিত উইকেন্ডে। আজ আংশিক মেঘলা আকাশ। রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় পাঁচ ডিগ্রি বেড়ে গেল। সকাল সন্ধ্যা শীতের হালকা আমেজ অনেকটাই কমল। বেলার দিকে সামান্য উষ্ণতা ও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১.৬ ডিগ্রি। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০ ডিগ্রি। বাতাসে জলীয় বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৪৮ থেকে ৯০ শতাংশ।

তামিলনাড়ু ও পন্ডিচেরি উপকূলে সোমবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে আজ থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে আর ওড়িশা উপকূলে সোম ও মঙ্গলবার সমুদ্রে যেতে নিষেধ মৎস্যজীবীদের।কুয়াশা থাকবে পঞ্জাব, হরিয়ানা, চন্ডিগড়, দিল্লি, উত্তর প্রদেশ এবং রাজস্থানে। উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতেও কুয়াশা। অসম, মেঘালয়, মণিপুর, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরাতে ভোরবেলায় কুয়াশার সম্ভাবনা। কুয়াশার সম্ভাবনা উত্তরাখন্ড, উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, হরিয়ানা, চন্ডিগড়, দিল্লি, রাজস্থানেও। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দক্ষিণ ভারতেও বৃষ্টির সম্ভাবনা। বৃষ্টির সম্ভাবনা তামিলনাড়ু এবং কেরালাতে। বৃষ্টি হতে পারে অন্ধ্রপ্রদেশ, কেরালা, মাহে, তামিলনাড়ু, কর্নাটক, পন্ডিচেরি ও করাইকালে। বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।