০৫ মার্চ ২০২৪, মঙ্গলবার, ০৭:৪৫:৫৬ পূর্বাহ্ন


পরকীয়া সুস্থতার লক্ষণ, কাউকে ভালো লাগতেই পারে : অপরাজিতা আঢ্য
বিনোদন ডেস্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৭-১২-২০২৩
পরকীয়া সুস্থতার লক্ষণ, কাউকে ভালো লাগতেই পারে : অপরাজিতা আঢ্য পরকীয়া সুস্থতার লক্ষণ, কাউকে ভালো লাগতেই পারে : অপরাজিতা আঢ্য


‘পরকীয়া’ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। সামাজিকভাবে শব্দটি ঘৃণ্য হলেও পরকীয়া মানবজীবনের অংশ হয়েই রয়েছে। অনেকেই বিশ্বাস করেন, পরকীয়া একটি নিকৃষ্টতম পন্থা, আবার অনেকেই পরকীয়ার সমর্থনেও কথা বলেছেন অনেক সময়। ভালোবাসা যেকোনো সময়, যে কারো সঙ্গেই হয়ে যেতে পারে।

এমনিতে বিয়েতে থাকাকালীন নতুন সম্পর্কে জড়ানোকে পরকীয়া বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। বহু বিয়েই ভেঙে যায় এই কারণে। বিনোদন অঙ্গনে পরকীয়া একটি চিরচেনা শব্দ। তারকাদের মাঝে এর প্রভাব অনেক বেশি।

তবে পরকীয়ার সমর্থনে প্রকাশ্যে কথাও বলেছেন অনেক তারকা। যেমনটা সম্প্রতি পরকীয়াকে সমর্থন করে নিজের মতামত জানালেন কলকাতার অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য।

সম্প্রতি পরকীয়া নিয়ে এক সাক্ষাৎকারে বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য বলেন, ‘পরকীয়া সুস্থতার লক্ষণ।’ যদিও অনেকেই তাঁর এই কথায় খেপতে পারেন, তবে অপরাজিতা কিন্তু যুক্তি দিয়ে বোঝালেন নিজের মন্তব্য। 

কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারকে অপরাজিতা বললেন, ‘কেন পরকীয়া আটকাতে হবে। এটা তো সুস্থতার লক্ষণ। চিরাচরিত ছিল। রামায়ণ-মহাভারতের সময় থেকে ছিল পরকীয়া। এটা জীবনের স্বাভাবিক ধর্ম।

কারো কাউকে ভালো লাগতেই পারে। আমি কারো সঙ্গে ঘর করি বলে জীবনে কাউকে ভালোবাসব না, কোনো ভালো জিনিস দেখব না, এমনটা তো হতে পারে না। যার যত অপশন বেশি, তার জীবনে তত মানুষ আসতেই পারে। এবার কেউ সেটা কিভাবে ব্যালান্স করবে সেটা সেই মানুষটার ব্যাপার। কিন্তু এতে তো কোনো অপরাধ নেই।’

অপরাজিতা মনে করেন, ভালো লাগা হতেই পারে বিয়েতে বা সম্পর্কে থাকাকালীন। তিনি বলেন, ‘আমি আমার সংসারকে বেশি গুরুত্ব দেব না অন্য কাউকে, সেটা আমি ঠিক করব। পাখিকেও তো খাঁচায় বন্দি রাখা ঠিক নয়। কাউকে না ঠকালেই হবে।’

অপরাজিতাকে এখন দেখা যাচ্ছে ‘জল থইথই ভালোবাসা’ ধারাবাহিকে। এর আগে লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টারে কাজ করেছিলেন তিনি। নতুন শুরু হওয়া এই মেগা সিরিয়াল বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। অপরাজিতাকে দেখা যাচ্ছে কোজাগরীর চরিত্রে। মধ্যবয়স্কা এক নারী, যে জীবনের প্রথমার্ধে স্বামী, সংসার, সন্তানে নিজেকে ঢেলে দিয়েছে। যার জীবনীশক্তি অফুরন্ত। গোটা পরিবারকে বেঁধে রাখে। বিপদে পিঠ দিয়ে আগলায়।