২৪ জুন ২০২৪, সোমবার, ১২:৫০:৪৩ অপরাহ্ন


এই পানীয়তে চুমুক দিয়ে ৭ দিনে পান ফর্সা ত্বক
ফারহানা জেরিন
  • আপডেট করা হয়েছে : ১১-০৬-২০২৪
এই পানীয়তে চুমুক দিয়ে ৭ দিনে পান ফর্সা ত্বক এই পানীয়তে চুমুক দিয়ে ৭ দিনে পান ফর্সা ত্বক


সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে পরিষ্কার করেন। আবার ঘুমোতে যাওয়ার আগেও মুখ ধুয়ে বিছানায় যান। ফেসওয়াশ ব্যবহার করা ছাড়াও ক্রিম, স্ক্রাব, সিরাম ব্যবহার করেন। এবার স্কিন হোয়াইটিং পানীয়তেও চুমুক দিন।

ত্বক যাতে নিখুঁত দেখায়, তার জন্য যা যা স্কিন কেয়ার করা দরকার, সবই করেন। কিন্তু তাতেও ত্বকের জেল্লা ফুটে ওঠে না।

ট্যান পরিষ্কার হয় না। উল্টে ত্বক নিস্তেজ ও কালচে দেখায়। 

ত্বককে ভাল রাখতে গেলে শুধু স্কিন কেয়ারের উপর জোর দিলে চলবে না। খাওয়া-দাওয়া নিয়ে সচেতন থাকতে হবে। তেল-মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। ফল, শাকসবজি বেশি করে খেতে হবে। 

ত্বকের সমস্যা কমাতে অনেকেই মুখে প্রাকৃতিক উপাদান মাখেন। বেসন, টক দই, হলুদের মতো উপাদান ব্যবহার করেন। এগুলো রেজাল্ট দিলেও সেটা সাময়িক হয়। ত্বককে ভিতর থেকে সুন্দর করে তুলতে হবে। 

ট্যান দূর করা থেকে শুরু করে ব্রণ, একজিমার সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে একটি পানীয়। এই পানীয় ত্বককে ফর্সা করতেও সাহায্য করে। মাত্র ৩টি উপাদান দিয়ে স্কিন হোয়াইটিং পানীয় বানিয়ে ফেলুন।

সসপ্যান গরম বসান। এতে দু'গ্লাস জল গরম করুন। এবার এতে এক মুঠো পুদিনা পাতা, ২-৩টে ছোট এলাচ ও এক চামচ মৌরি মিশিয়ে দিন। এবার মিশ্রণটি মাঝারি আঁচে ফুটিয়ে নিন। 

জল ফুটে এক গ্লাস মতো হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে দিন। এবার এই পানীয় ছেঁকে নিন। এই পানীয় সকালে খালি পেটে পান করুন। এটি ত্বকের সমস্যা ভিতর থেকে নির্মূল করে তুলবে। 

পুদিনা পাতা, এলাচের মধ্যে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল্ল উপাদান রয়েছে, যা ত্বককে প্রদাহের হাত থেকে রক্ষা করে। এই পানীয় ত্বককে ডিটক্সিফাই করতে সাহায্য করে। ৭ দিন এই পানীয় খেলেই দেখবেন ত্বকের জেল্লা বেড়ে গিয়েছে।