১৪ জুন ২০২৪, শুক্রবার, ০৪:২০:১৯ অপরাহ্ন


আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার প্রধান আসামী রানা গ্রেফতার
মাসুদ রানা রাব্বানী, রাজশাহী:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৮-০৭-২০২২
আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার প্রধান আসামী রানা গ্রেফতার আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার প্রধান আসামী রানা গ্রেফতার


 রাজশাহীর বাগমারায় আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার প্রধান আসামী মোঃ রানাকে (২০) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৫।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) ভোর রাতে নাটোর জেলার সদর থানাধীন পূর্ব সোন পাতিল গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতার মোঃ রানা রাজশাহীর বাগমারা থানার বীরকুৎসা দেওয়ানপাড়া গ্রামের মোঃ জাহিদুল ইসলামের ছেলে।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় র‌্যাব-৫, রাজশাহীর মোল্লা কাম্পের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চত করা হয়।

র‌্যাব জানায়, গত ৭মাস আগে বাগমারা উপজেলার বীরকুৎসা গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে রানা ইসলামের সঙ্গে নিহত গৃহবধূ হোসনেয়ারার (১৬) বিয়ে হয়। বিয়ের পর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাঁদের মধ্যে দ্বন্দ ও মনোমালিন্য দেখা দেয়। 

এরই ধারাবহিকতায় (১৯ জুলাই) শ্বশুরবাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গৃহবধূর লাশ উদ্ধারের পর থেকেই তার গৃহবধূর স্বামী রানা গা ঢাকা দেয়। 

নিহতের পিতা ভ্যানচালক আব্দুল মালেকের অভিযোগ, জামাতাকে মুঠোফোন কিনে না দেওয়ায় তাঁর মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় বাগমারা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার পর থেকে র‌্যাব-৫, ছায়া তদন্ত শুরু করে। সেই সাথে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখার সহযোগিতায় নাটোর জেলার সদর থানার পূর্ব সোনাপাতিল এলাকা থেকে আসামি মোহাম্মদ রানাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৫। 

উল্লেখ্য, গত (১৯ জুলাই) শ্বশুরবাড়ি থেকে গৃহবধূ হোসনেয়ারার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এনিয়ে “১৮ কিমি ভ্যান চালিয়ে মেয়ের লাশ নিয়ে থানায় গেলেন বাবা” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। যাহা রাজশাহীর একাধিক স্থানীয় পত্রিকাসহ দেশের বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ নিয়ে ওই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।